Home জাতীয় মানবতার ফেরিওয়ালা গোলাম রাব্বানী’র ডাকে সাড়া দিয়ে মানবতার সেবায় বুটেক্স ছাত্রলীগের...

মানবতার ফেরিওয়ালা গোলাম রাব্বানী’র ডাকে সাড়া দিয়ে মানবতার সেবায় বুটেক্স ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাঈনুল ইসলাম লিংকন

158
0

নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার বলাইশিমুল ইউনিয়নের ছবিলা গ্রামের হতদরিদ্র আবুল কাশেম। শারীরিক প্রতিবন্ধী কাশেম ভাই কায়িকশ্রমের কাজ করতে পারেন না বলেই মোটা সুদে ঋণ করে হাঁসের খামার করেছিলেন ভাগ্য ফেরানোর আশায়। বিধি বাম! দুর্বৃত্তদের প্রয়োগ করা বিষে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে তার বেঁচে থাকার অবলম্বন প্রায় ৮০০ হাঁস।

মানবিক ছাত্রনেতা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী ভাইয়ের ফেসবুক টাইমলাইনে এই স্ট্যাটাসের পর ছাত্রলীগের অনেক মহল থেকে সাহায্যর আশ্বাস আসতে থাকে ।

বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে বিপ্লবী সাধারণ সম্পাদক জনাব মাইনুল ইসলাম লিংকন সারা বাংলার ছাত্র সমাজের অহংকার ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর সেই স্ট্যাটাসে ৫০ টি হাঁস কিনে দেওয়ার অঙ্গীকার করেন ।

অঙ্গীকার অনুযায়ী আজকে রোজ বুধবার মাইনুল ইসলাম লিংকন আজকে নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার বলাইশিমুল ইউনিয়নের ছবিলা গ্রামের হতদরিদ্র আবুল কাশেমের বাড়িতে গিয়ে তার সাথে কুশলাদী বিনিময় করেন এবং তার পরিবারের খোঁজখবর নেন ।

বিস্তারিত জনাব মাইনুল ইসলাম লিংকন টাইমলাইন থেকে নেওয়াঃ

আবুল কাশেম বলেন রাব্বানী ভাই মানুষটির সঙ্গে দেখা হলে বলবেন “আমার জীবনের এখন ইচ্ছা এই ফেরেশতা কে আমি নিজের চোক্কে দেখতো চাই।” আমি বললাম আমাদের নেত্রী হাসিনা আপা উনারে নিজের পছন্দে ছাত্রলীগের দ্বায়িত্ব দিছেন ; “হাসিনা আপা রাব্বানী ভাইকে দিয়ে আইঙ্গর যে আগে একজন আরেকজনের প্রতি যে মায়া মহব্বত আছিন, সুখে দুঃখে একজন আরেকজনের ফি চাইতো ভালোবাসা দিয়া ঐডা ফির মনে করাইয়া দিবাইন।”

আজ আমি যখন সকাল ঘুম থেকে উঠেই ঘুম ঘুম চোখে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের অনন্য কান্ডারী, যিনি মানবতার বার্তা নিয়ে বারবার দুস্থ-অসহায় মানুষের কাছে গিয়েছেন সাধারন সম্পাদক গোলাম রাব্বানী ভাইয়ের আহ্বান দেখলাম, সেই মুহূর্তেই আমার মনে হল যে মানবিকতার টান উনি বারবার দেখিয়েছেন সেটার জন্য বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে আমারো কিছু করা প্রয়োজন । সবাই সমালোচনা করে তাই ভাবলাম না বলে নিজে গিয়ে দেখে আসি, আমি ছুটে গেলাম গোলাম রাব্বানী ভাইয়ের নির্দেশে সেই ছবির মতো নয়নাভিরাম পথধরে গ্রাম ছবিলা’র খামার মালিক আবুল কাশেমের বাড়িতে।

তিনি কৃতজ্ঞতার সুরে আমাদের ধন্যবাদ দিয়েছেন বলেছেন গোলাম রাব্বানী ভাই মানুষ নন, একজন ফেরেশতা। নেত্রোকোনা জেলার কেন্দুয়া মডেল থানার নতুন অফিসার্স ইন চার্জ মোঃ রাশেদুজ্জামান ভাইয়ের সাথে সম্পর্ক গত ৭ বছরের শিল্পাঞ্চলের, তাই যোগাযোগ করে জানতে পারি একটি প্রাথমিক অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে এবং ঘটনার তীব্র নিন্দা প্রকাশ করে স্থানীয় ইউ এন ও বিষয়টা জানানোর পর তিনি এবং ইউ এন ও খামার মালিক আবুল কাশেমকে ২০ হাজার টাকা নগদ প্রদান করবেন যেটা আমি গিয়ে সচক্ষে দেখলাম আর রাব্বানীর গুনকীর্তন শুনে আবার গর্বিত হলাম এবং তারা ঘটনাটির সুষ্ঠু তদন্তের এবং উপযুক্ত শাস্তির আশ্বাস দিয়েছেন।

তিনি আমাদের আরো জানিয়েছেন, গোলাম রাব্বানী ভাইয়ের নির্দেশে বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বশেষ অনুদান যোগ করার পর সর্বমোট ৬০ হাজার টাকার মত অনুদান উনি ইতিমধ্যে পেয়েছেন এবং আরো অনেকে আশ্বাস দিয়েছেন এই সপ্তাহের মাঝে আরো অনুদান উনার কাছে পৌছে দিবেন। তিনি আশাবাদী, হতাশ না হয়ে আরো একবার ঘুরে দাঁড়িয়ে ৮০০ নয় ১৬০০ হাঁস নিয়ে খামার শুরু করবেন। ভালো থাকবেন সবসময়।তিনি অশ্রুশিক্ত কন্ঠে বলেন, তার দু’টি ছেলে রয়েছে। একজন মাদ্রাসায় পড়ে আরেকজন ক্লাস সিক্সে। ক্লাস সিক্সে পড়ুয়া ছেলেটির ভবিষ্যতে লেখাপড়া করানোর সকল দ্বায়িত্ব নেয়ার প্রতিশ্রুতি এবং তার প্রতিবেশী বন্ধুশিক্ষক জনাব শফিকুল ইসলাম স্যার , গলগন্ডা উচ্চ বিদ্যালয়, ময়মনসিংহ ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here